কোচবিহার:দুয়ারে সরকার শিবিরে আগত সাধারণ মানুষদের হাতে মুড়ি, ঘুগনি ও জল তুলে দিয়ে নজির সৃষ্টি করল কন্যাশ্রীর ছাত্রীরা। এমনই চিত্র দেখা গেল কোচবিহার ১ নম্বর ব্লকের পানিশালা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার ধাইয়ের হাট হাই মাদ্রাসা স্কুলে। শুক্রবার ধাইয়ের হাট হাই মাদ্রাসা স্কুলে অনুষ্ঠিত হয় তৃতীয় পর্যায়ের দুয়ারে সরকার শিবির। সেখানে ওই স্কুলের শিক্ষকরা যেমন দুয়ারে সরকারের ক্যাম্পে আসা বাসিন্দাদের আবেদনপত্র পূরণ করে দিয়ে সহযোগিতা করছেন। তেমনি কন্যাশ্রীর ছাত্রীদের দিয়ে লাইনে দাড়িয়ে থাকা সাধারণ মানুষদের হাতে তুলে দিচ্ছেন মুড়ি, ঘুগনি, পানীয় জল এবং ওয়ারেস। এতে রাজ্য সরকারের বিভিন্ন সরকারী প্রকল্পের সুবিধা নিতে সাধারণ মানুষ যেমন খুশি তেমনি খুশি এলাকার বাসন্দারাও।
ওই মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হামিদুল ইসলাম বলেন, “আমাদের এই মাদ্রাসায় আজ তৃতীয় পর্যায়ে দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প চলছে। প্রথম দিন থেকেই আমরা ক্যাম্পে আসা প্রত্যেককেই আবেদনপত্র পূরণ করে দেওয়ার পাশাপাশি কন্যাশ্রীর ছাত্রীদের দিয়ে পানীয় জল, সরবত, ওয়ারেস দিয়ে সাহায্য করেছি। আজ স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের ব্যক্তিগত উদ্যোগে লাইনে দাড়িয়ে থাকা সাধারণ মানুষদের হাতে মুড়ি, ঘুগনি, পানীয় জল এবং ওয়ারেস তুলে দিয়ে তাঁদের কিছুটা ক্লান্তি দূর করার চেষ্টা করা হচ্ছে”।
স্কুলের আরেক শিক্ষক উপেন্দ্র চন্দ্র চন্দ বলেন, “ বর্তমানে স্কুল বন্ধ রয়েছে, দুয়ারে সরকার প্রকল্প সফল করতে তাই আমরা আমদের স্কুল খুলে দিয়েছি, যাতে করে রাজ্য সরকারের বিভিন্ন সরকারী প্রকল্পের সুবিধা নিতে আসা সাধারণ মানুষ রোদ ও বৃষ্টিতে তারা যেন আশ্রয় নিতে পারে। এখানে দীর্ঘক্ষণ থেকে লাইনে দাড়িতে থেকে সাধারণ মানুষ ক্লান্ত হয়ে পড়ছে। তাই আজ তাঁদের মধ্যে কিছু আহার ও পানীয় জল তুলে দেওয়া হচ্ছে। মানুষের উপকারে আসতে পেরে আমাদের ভালো লাগছে।”
রাজ্য জুরেই চলছে দুয়ারে সরকারের ক্যাম্প। দুই তিনটি বুথ নিয়ে এই ক্যাম্প গুলো হচ্ছে। মূলত মহিলাদের ভিড় জমছে এই ক্যাম্প গুলোতে। বহু জায়গা থেকে খবর আসছে দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়ে অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। কোথাও কোথাও ভিরের চাপে পদপিষ্টের মত ঘটনাও ঘটছে। এই অবস্থায় কোচবিহার ১ নম্বর ব্লকের পানিশাল গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার ধাইয়েরহাট হাই মাদ্রাসার শিক্ষক ও ছাত্রীদের এহেন উদ্যোগ নজির স্থাপন করেছে বলেই মনে করা হচ্ছে।