শ্যাম বিশ্বাস,উত্তর ২৪ পরগনা : জানা গেছে বসিরহাট মহকুমার বসিরহাট ২নং ব্লকের ধান্যকুড়িয়ার দুই যোদ্ধা ললিত মোহন বাইন ও সনৎ মণ্ডল নেতাজিকে গ্রামে নিয়ে এসেছিলেন। যেন গ্রামের মানুষ দেশনায়কের কথায় উদ্বুদ্ধ হয়ে ব্রিটিশদের হাত থেকে দেশকে স্বাধীনতা এনে দেয়।

সুভাষ বোসকে আনার ফলস্বরূপ ধান‍্যকুড়িয়ার তৎকালীন জমিদার লেঠেল বাহিনীর হাতে অত্যাচারিত হয়েছিলেন ওই দুইজনকে।এদিন সেই স্মৃতি আঁকড়ে ধরে মণ্ডল পরিবারের সদস্য ও বাইন পরিবারের সদস্য ছন্দক বাইনরা দাবি তুললেন।

নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বোসের ১৩৫ তম জন্মদিনে এখানে একটি স্মৃতিসৌধ তৈরি করা উচিত দাবি তোলা হয়। ইতিমধ্যে ললিত মোহন বাইন উত্তরসূরীদের জন্য তাদের জমিতে একটি স্মৃতিসৌধ তৈরি করার কাজ শুরু করার তোড়জোড় শুরু হয়। রবিবার ধান্যকুড়িয়ার বাইন পাড়ায় তাঁর প্রাথমিক কাজ শুরু হয়।
এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ছন্দক বাইন, বিপ্রতীপ দে আরও বহু বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।শুভসূচনার মধ্যে দিয়ে ধান্যকুড়িয়া গাইন জমিদারবাড়ির সদস্য মনোনীত গাইন ও শিক্ষিকা লাবনী গাইন তাদের জমানো অর্থ দিয়ে এই স্মৃতিসৌধের প্রাথমিক কাজ শুরু করলেন।
পরিবারের সদস্য ছন্দক গাইন জানান, নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু বসিরহাট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে একটি জনসভা করেছিলেন জানা যায় ওই সময় ধান্যকুড়িয়ার গ্রামে তাকে বিশেষ ভাবে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল যেন গ্রামের লোকেরা তার কথা শুনে দেশ স্বাধীনের ডাকে সাড়া দেয় ও ব্রিটিশ মুক্ত ভারত গড়তে পারে।