শ্যাম বিশ্বাস, উত্তর ২৪ পরগনাঃ আম্ফান স্মৃতি এখনো যেন দগদগে ঘা রাজ্যের মানুষের কাছে। বিগত দুর্যোগগুলোকে হার মানিয়ে আম্ফান জায়গা করে নিয়েছিল ভারতবর্ষের মানচিত্রে। সুন্দরবনের বিস্তীর্ণ এলাকায় বয়ে গিয়েছিল সুপার সাইক্লোন আম্ফান। সেই স্মৃতি এখনো দগদগে রয়েছে। কেউ স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পেরেছে আবার কেউ কেউ এখনো সমস্যা কাটিয়ে উঠতে পারেননি।

পাশাপাশি বিদ্যাধরী রায়মঙ্গল ইছামতি কালিন্দীবেতনী নদীর বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয়েছিল বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে। কারো ঘর ছিল আবার কারো ছিল না সুপার সাইক্লোন তছনছ করে দিয়ে গিয়েছিল সুন্দরবনের এই প্রত্যন্ত এলাকা গুলিতে। পরবর্তীতে সরকারের সাহায্যে  মেরামত করে মেছো ঘেরি সেগুলিও আবার পুনরায় মৎস্য চাষ করার উপযুক্ত করে তুলেছেন।

সরকারি সাহায্য পেয়ে এলাকার মানুষ তারা জানাচ্ছেন, তারা যথেষ্ট পরিমাণে সরকারি সাহায্য পেয়ে স্বাভাবিক জীবনে অনেকটাই ফিরে আসতে পেরেছেন। আবার কোথাও কোথাও  দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। সব মিলিয়ে অত্যান্ত সুন্দরবন এলাকার মানুষের দুর্ভোগের শেষ নেই, একটা ঝড় কাটতে না কাটতে আবার সেখানে আরো একটি সুপার সাইক্লোন বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে   প্রবল বৃষ্টিপাত শুরু হবে আর ঝড় আছরে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

ইতিমধ্যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নবান্নে দুর্যোগ মোকাবেলা দল, সেনাবাহিনী বায়ুসেনার সঙ্গে জরুরী ভিত্তিতে বৈঠক করেছেন। সতর্ক বার্তা জেলাশাসকদের নির্দেশ দিয়েছে। সব মিলিয়ে রাজ্য সরকার আগের থেকেই ঘূর্ণিঝড় যশের মোকাবেলায় কোমর বেঁধে নেমেছে। যাতে কোনরকম বড় ধরনের বিপর্যয় না হয়। তার সব রকম আগাম প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে।

কিন্তু মৎস্যজীবীরা আগেই নদীতে মাছ ধরতে চলে গেছে। তাদেরকে ফেরার জন্য আবেদন জানিয়েছেন। সবমিলিয়ে এখন সময় যত যাচ্ছে যশের আতঙ্ক ধীরে ধীরে রাজ্যকে গ্রাস করছে। কিন্তু রাজ্য সরকার যশের মোকাবেলায় সব রকম প্রস্তুতি নিয়েছ আগাম। এলাকার মানুষ আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে এবং আমফানের স্মৃতি মনে করে তাদের রাতের ঘুম উড়েছে। এই মুহূর্তে পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন হাড়োয়া পঞ্চায়েত সমিতির জনস্বাস্থ্যের কর্মদক্ষ তথা ওই এলাকার পঞ্চায়েত সমিতি মেম্বার সুশান্ত বিশ্বাস।

তিনি বলেন, আমফান এর সময় তাদেরকে যথেষ্ট রকমভাবে সাহায্য করা হয়েছিল, এবারও তার ব্যতিক্রম হবে না, এবারও আমরা পাশে দাঁড়াবো সাধারণ মানুষের যত সমস্যা আছে আমরা সব রকম ভাবে সমাধান করার চেষ্টা করব। তার পাশাপাশি সম্পূর্ণভাবে প্রস্তুতি নিয়ে নেবেন যশ মোকাবেলা করতে।