চোপড়া,অমিতজীবন রায়:মানসিক ভারসাম্যহীন নাতিকে নিয়ে সমস্যায় পড়েছেন দাদু।চোপড়ার সুরভি পল্লীর বাসিন্দা কালীপদ ঘোষ।ছেলের দায়িত্ব এড়িয়ে বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছেন মা। এখন ঠাকুরমা আগলে রেখেছেন ওই নাতিকে।চোখে চোখে রাখতে তাই বছর ২৪-এর নাতিকে সারাক্ষণ কোমরে শেকল বেঁধে রাখেন বৃদ্ধ ঠাকুরমা।কখনো তার ঠাকুরদা শিকল বাঁধা অবস্থায় বাইরে বের করেন।কালীপদ বাবুর ছেলে খুসিমহণ আড়াই বছর আগে মারা যায়।সম্প্রতি তার ছোট নতিও মারা যায়। বাড়ির বৌমা বড় ছেলেকে এই অবস্থায় ছেড়ে পালিয়েছেন।বাড়িতে বৃদ্ধ বৃদ্ধা নিজেরাই অসুস্থ,এই অবস্থাতেও নাতিকে দেখাশোনা করতে হয় তাদের।অসহায় যুবক নাতি নিজে হাতে ভাত তুলে খেতে পারেননা।আর্থিক সংকটে ভালো চিকিৎসা পর্যন্ত করাতে পারছেন না।এলাকার প্রাক্তন প্রধান মোহাম্মদ হানিফ বলেন,এর আগে গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে সাহায্য করা হয়।আবারও খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়া হবে।এছাড়াও চোপড়া ব্লক সভাপতি প্রীতি রঞ্জন ঘোষ, চোপড়া অঞ্চল সভাপতি তনয় কুন্ডু এনারা বাড়িতে এসে সমস্ত রকম সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার আশ্বাস দেন।