শ‍্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪ পরগণা: মিলছেনা যাত্রী,নেই পর্যটক। কি করে চলবে সংসার? কি করে হবে ঋণ পরিশোধ? চিন্তায় টাকির টোটো চালকরা।পর্যটন কেন্দ্রে পর্যটক না আসায় বিপাকে টোটো চালকরা। ব্যাংকের ঋণ নিয়ে টোটো কিনে সেই ঋণ পরিশোধ করতে পারছেন না তারা,চিন্তায় গোটা পরিবার। কিভাবে ঋণ শোধ হবে আর কি করেই বা সন্তানদের মুখে অন্ন তুলে দেবে? সব মিলিয়ে ঘোর সংকটে তাদের পরিবার বলে জানান তারা

বসিরহাট মহাকুমার টাকি ষ্টেশনের টোটো রিক্সা ইউনিয়নের প্রায় শতাধিক টোটো চালক রয়েছে। করোনাকালে একদিকে ট্রেন বন্ধ অন্যদিকে পর্যটকরা আসছে না। গভীর সংকটে টোটো চালকরা।

তাদের জীবন-জীবিকা বন্ধ হয়ে গেছে সেই সঙ্গে টোটো চালক পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা তাদের দৈনদন চাহিদা মেটাতে হিম শিম খাচ্ছে।তারা বলেন যদি দীর্ঘদিন এই ভাবে চলতে থাকে আগামী দিনে কি করে চলবে সেই চিন্তা কুরে-কুরে খাচ্ছে।টাকি টোটো ইউনিয়নের সম্পাদক সুবীর চক্রবর্তী বলেন, ট্রেন বন্ধ হয়ে গেছে, শিয়ালদা হাসনাবাদ লোকাল এর উপরেই আমাদের ভরসা, এখানে প্রায় শতাধিক টোটো আছে সেই সঙ্গে পাঁচ শতাধিক পরিবার সদস্য রয়েছে আমরা কিছু বুঝতে পারছিনা কি করব। এক টোটো চালকের পরিবারের সদস্য বলেন লোকাল ট্রেনের যাত্রী ও পর্যটকদের উপরেই নির্ভর করে আমাদের সংসার চলে, সেটা বন্ধ হয়ে গেছে জীবন-জীবিকায় টান পড়েছে। এইভাবে চলতে থাকলে আগামী দিনে আমাদের অনাহারে থাকতে হবে।রেশন থেকে যেটুকু চাল-ডাল পাই তার ওপরে কি করে সংসার চলবে। তিনি আরো বলেন, ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে টোটো কেনা হয়েছিল কি করে লোন শোধ করবো,আর কিভাবে ছেলে মেয়েদের মুখে অন্ন তুলে দেবো বুঝতে পারছি না। সব মিলিয়ে গভীর সংকটে টাকি টোটো চালক ও তাদের পরিবার বলে তারা জানান।